শুক্রবার, ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

হারলেও যে সমীকরণে সুপার এইটে খেলবেন শান্তরা

শুধু রান করাতেই পিছিয়ে শান্ত এ জন্য শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নেদারল্যান্ডসকে বড় ব্যবধানে হারতে হবে। ডি-গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয়তে রয়েছে বাংলাদেশ। নেপালকে হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই টাইগারদের। কারণ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নেপালের পারফরম্যান্স ভাবাচ্ছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজম্যান্টকে। বাংলাদেশের উদ্বেগের বড় কারণ টপ অর্ডারের ব্যর্থতা। তবে মিডল অর্ডার ব্যাটার এবং বোলারদের পারফরম্যান্স আশাব্যঞ্জক করে তুলছে দলটির সমর্থকদের। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে নেমে ৭ উইকেট শিকার করেছেন লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন।

ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে প্রতিপক্ষের উইকেট তুলে নিচ্ছেন তিনি। তার বোলিং মনোবল বাড়িয়েছে বাংলাদেশের। তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান এবং তানজিম হাসান সাকিবকে নিয়ে গড়া টাইগারদের পেস ইউনিট যে কোনো দলের জন্য ভয়ংকর। এ দিকে ইনজুরি কাটিয়ে একাদশে ফেরার অপেক্ষায় শরীফুল ইসলাম। পয়েন্ট ও নেট রান রেট-দুইভাবে ডাচদের চেয়ে বেশ খানিকটা এগিয়ে বাংলাদেশ। নেপালের বিপক্ষে বড় কোনো অঘটন না ঘটলে সেরা আটের শেষ স্পটটা হবে বাংলাদেশের। এরই মধ্যে নিশ্চিত হয়েছে সুপার এইটের বাকি সাত দল।

ডাচদের সামনে জটিল সমীকরণ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আগে ব্যাট করে নেদারল্যান্ডস যদি ১৪০ রান করলে, সুপার এইটে খেলতে হলে অন্তত ৫৩ রানের ব্যবধানে জিততে হবে। অথবা নেপালের কাছে বাংলাদেশকে হারতে হবে ৩৮ রানে। লঙ্কানদের বিপক্ষে হারের ব্যবধানটা কম হলে বা ডাচরা কম রানে জিতলে সুপার এইটে খেলবে বাংলাদেশ। তবে এই জটিল সমীকরণ মেনে তো আর ক্রিকেট খেলা যায় না। তাই নাজমুল হোসেন শান্তদের জেতে হবে সহজ সমীকরণে, নেপালকে হারিয়ে পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে সেরা আট নিশ্চিত করা।

বাংলাদেশের বিপক্ষে নেপাল, আর নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে বিশ্বকাপের বিদায়ী ম্যাচ খেলবে শ্রীলঙ্কা। এ ম্যাচে বাংলাদেশের ভাবনা শুধুই জয়। এর আগে টি-টোয়েন্টি একবারই নেপালের বিপক্ষে লড়েছে বাংলাদেশ দল। ঘরের মাঠে ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের ৮ উইকেটের জয় পেয়েছিল টাইগাররা। নেপালের বিপক্ষে জয়ে এটি হবে বাংলাদেশের সেরা বিশ্বকাপ। কারণ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এক আসরে কখনোই তিন ম্যাচে জেতা হয়নি টাইগারদের।

সংবাদের আলো বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়