সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

মদনে নেশার টাকার জন্য মোবাইলে ডেকে নিয়ে কিশোরকে মারপিট 

মদন (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি: নেত্রকোনার মদনে   নেশার টাকার জন্য  রিমন( ১৭) নামে এক কিশোরকে মোবাইল ফোনে  ডেকে নিয়ে  লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করার অভিযোগ দায়ের করেছেন  কিশোরের বাবা  উনু মিয়া  ।  ৬ কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যসহ আরও ৩/৪ জন অজ্ঞাত করে রিমনের বাবা এ অভিযোগটি দায়ের করেন।  অভিযোগ সূত্রে জানান যায়,  সোমবার রাত পৌঁনে ৮ টার দিকে কিশোর গ্যাংয়ের   এক সদস্য কাওসার (১৮) মোবাইল ফোনে কল দিয়ে রিমনকে জাহাঙ্গীরপুর ফাজিল মাদ্রাসা আসতে বলে। পূর্ব পরিচিত কাউসারের ডাকে সাড়া দিয়ে সরল বিশ্বাসে রিমন রাত ৮ টায় মাদ্রাসায় পৌছে। তখন মহিম তাদের নেশার জন্য তার কাছে টাকা দাবি করে।
কিন্তু রিমন টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ইমরান ওরফে শরীফ (১৭) তার গলায় ছুরি ধরে। এরই ফাঁকে তমজিদ (১৭) রিমনের পকেটে থাকা টাকা নিয়ে যায়। এতে সে বাঁধা দিলে মহিম, ইমন (১৭) ও সজিব (১৮) তাকে লোহার রড দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করে ফেলে চলে যায়। পরে তার পরিবারে লোকজন তাকে উদ্ধার করে মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। বর্তমানে সে  চিকিৎসাধীন রয়েছে। রিমনের পিতা উনু মিয়া জানান, কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা নেশার টাকার জন্য আমার ছেলেকে হত্যা করতে চাইছিল। আল্লাহ’র সহায় আমার ছেলে বেঁচে গেছে। বিচারের দাবিতে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। আমি তাদের সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানাচ্ছি।
কাউতার তার মোবাইল ফোনে জানান, রিমন  ভাই আমার বড়। তাই আমি তাকে ফোন করে ছিলাম আমরা আড্ডা দেয়ার জন্য। কিন্তু ওরা কোথায় থেকে এসে রিমন ভাইকে মারপিট করতে শুরু করতেছে আমি বিষয়টি বুঝি নাই। এর পর আমি রিমন ভাইকে যেন মারতে না পারে আমি তাদের বাঁধা দিয়েছি। রিমন ভাইদের সাথে আমাদের এক সময় ঝগড়া হয়েছে মিটমাট হয়নি। এর পরেও আমরা এক সাথে থাকি। তাদের জন্য আমি এখন ফেঁসে গেছি। মদন থানার ওসি উজ্জ্বল কান্তি সরকার জানান, এ ব্যাপারে কিশোরের বাবা ১১ জুন একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ বিষয়টি  তদন্ত করছে।

সংবাদের আলো বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----