মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

ভারী বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত দিল্লি, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১

আবহাওয়া অফিস রোববার এবং সোমবার ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়ে ভারতের জাতীয় এই রাজধানীতে কমলা সতর্কতা জারি করেছে। ভারতের আবহাওয়া দপ্তরের রঙ-ভিত্তিক সতর্কীকরণ ব্যবস্থা অনুসারে, কমলা সতর্কতা জারির অর্থ হচ্ছে- মানুষকে ভারী বৃষ্টির জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা। দিল্লিতে বর্ষার প্রথম দুই দিন বেশ কিছু নিচু এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে এবং ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার শহরটিতে ২২৮.১ মিমি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে, যা ১৯৩৬ সালের পর থেকে জুন মাসে এক দিনে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত।
ভারতের আবহাওয়া দপ্তর তথা আইএমডি বিজ্ঞানী সোমা সেন এনডিটিভিকে বলেছেন, মৌসুমী বায়ু অগ্রসর হচ্ছে এবং উত্তর ভারতের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।’ মূলত আরও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাসে শঙ্কিত দিল্লিবাসী। বৃষ্টি বিপর্যস্ত রাজধানীতে প্রাণ হারানো ১১ জনের মধ্যে মধ্যে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে বৃষ্টির কারণে জমে থাকা পানিতে ডুবে। মৃতদের মধ্যে কয়েক জন শিশুও রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া বসন্ত বিহারে দেয়াল ধসের ঘটনায়ও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।
এদিকে শনিবারের বৃষ্টিতে নতুন করে প্লাবিত হয়েছে রোহিণী, বুরারি এবং মধ্য দিল্লির বহু এলাকা। সফদরজংয়ে শনিবার বৃষ্টি হয়েছে ৮.৯ মিলিমিটার। লোদি রোডে বৃষ্টি হয়েছে ১২.৬ মিলিমিটার। রোববার এবং সোমবারও ভারী বৃষ্টির পাশাপাশি ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়ারও পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। আগামী চার দিন ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হলেও সাত দিন পর্যন্ত এই পরিস্থিতি চলতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। মূলত বর্ষার মৌসুমে দিল্লিতে ৬৫০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টি হয়। কিন্তু শুধু শুক্রবারই গোটা মৌসুমের এক-তৃতীয়াংশ বৃষ্টি হয়েছে। সেদিন ২২৮ মিলিমিটার বৃষ্টির জেরে প্লাবিত হয়েছে গোটা দিল্লি।

সংবাদের আলো বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়