সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

তাড়াশে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: সারা দেশের যথাযথ মর্যাদায় সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ (১৭ এপ্রিল) বুধবার সকালে তাড়াশ প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সুইচিং মং মারমা।
এ সময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি খালিদ হাসান।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন
তাড়াশ পৌরসভা মেয়র আব্দুর রাজ্জাক, বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম আব্দুর রাজ্জাক, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আব্দুল আল মামুন,উপ পুলিশ পরিদর্শক দেবব্রত কুমার, চেয়ারম্যান ময়নুল হক, মেহেদী হাসান ম্যাগনেট, জুলফিকার আলী ভুট্টো, জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসাক, নারী কাউন্সিলর রোখসানা রুপাসহ বিভিন্ন দফতরে দপ্তর প্রধানেরা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সুইচিং মং মারমা বলেন , আজ ১৭ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সুদীর্ঘ ইতিহাসের এক চিরভাস্বর অবিস্মরণীয় দিন। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে অনন্য এক দিন আজ। ১৯৭১ সালের এই দিনে তৎকালীন কুষ্টিয়া জেলার মেহেরপুর মহকুমার বৈদ্যনাথ তলার আম্র কাননে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভা শপথ গ্রহণ করে। রচিত হয় স্বাধীন বাংলাদেশের নতুন ইতিহাস। এই অনুষ্ঠানে ঘোষিত হয় ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল গঠিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র।

১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। এর তিন সপ্তাহ পর বৈদ্যনাথতলা নামে পরিচিত ঐ বিশাল আমবাগান এলাকাকেই পরে ‘মুজিবনগর’ নাম দিয়ে বাংলাদেশের অস্থায়ী রাজধানী ঘোষণা করা হয়েছিল। বাংলাদেশকে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর দখলমুক্ত করতে মুজিবনগর সরকারের নেতৃত্বেই পরিচালিত হয় সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ। অস্থায়ী সরকারের সফল নেতৃত্বে ৯ মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে।

সংবাদের আলো বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----