রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

কোরবানির পশুর সঙ্গে আকিকা করা কি বৈধ?

যিনি সন্তানের লালন-পালন কিংবা ভরণ-পোষণের দায়িত্ব পালন করছেন, তিনিই সন্তানের আকিকা আদায় করবেন। তাই প্রথমত, এই দায়িত্ব পিতার ওপর ন্যস্ত হয়। পিতার সামর্থ্য না থাকলে সে ক্ষেত্রে মা সামর্থ্যবান হলে তিনি অথবা তাদের সামর্থ্য না থাকলে তখন তাদের পক্ষ থেকে দাদা-দাদি, অথবা নানা-নানি আকিকা আদায় করতে পারবেন। (আল মাউসুআতুল ফিকহিয়্যাহ: ৩০/২৭৭) । উল্লেখ্য, অনেকের ধারণা, আকিকার জন্তু নানার বাড়ি থেকে আসতে হয়, এ ধারণা সঠিক নয়।হজরত উম্মে কুরজ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসুল (সা.)-কে বলতে শুনেছি, ‘ছেলের জন্য এক ধরনের দুটি বকরি এবং মেয়ের জন্য একটি বকরি আকিকা করবে।’ (আবু দাউদ : ২৮৩৪)

তবে ছেলের পক্ষ থেকে একটি বকরি আকিকা করলেও মুস্তাহাব আদায় হয়ে যাবে। যদিও দুটি করা উত্তম। (রদ্দুল মুহতার : ৫/২১৩, আল মাউসুআতুল ফিকহিয়্যাহ : ৩০/২৭৭)

অনেকেই জানেন না কি ধরনের পশু দিয়ে আকিকা করা উচিত! মূলত, যেসব জন্তু দিয়ে কোরবানি শুদ্ধ হয় না, সেসব জন্তু দিয়ে আকিকাও শুদ্ধ হয় না। তাই আকিকার ক্ষেত্রে জন্তুর বয়স ও ধরনের দিক থেকে কোরবানির জন্তুর গুণ পাওয়া যায়, এমন জন্তুই নির্বাচন করতে হবে। (তিরমিজি: ৪/১০১)

অনেকেই আবার জানতে চান কোরবানির পশুর সঙ্গে আকিকা করা বৈধ হবে কিনা!

হ্যাঁ, কোরবানির জন্তুর সঙ্গে আকিকা করা বৈধ। একটি পশুতে ৩ শরিক কোরবানি হলে সেখানে আরো ২-১ শরিক আকিকার জন্যও দেওয়া যেতে পারে। তদ্রূপ কোরবানির মতো একই পশুতে একাধিক ব্যক্তি শরিক হয়ে আকিকা আদায় করতে পারবে। (দুররুল হুক্কাম: ১/২৬৬)

আরও সহজ করে বললে, একটি বড় পশু সর্বোচ্চ সাত জন শরিক মিলে কোরবানি করতে পারেন। এক্ষেত্রে এদের মধ্যে যদি কেউ আকিকা দেওয়ারও নিয়ত করেন, তাহলে তার আকিকা ও অন্যদের কোরবানি সহি হবে। এতে কোনও সমস্যা নেই।

আর আমাদের সমাজে প্রচলিত আছে যে, আকিকার মাংস যার নামে আকিকা— তিনি, তার বাবা-মা ও স্বজনেরা খেতে পারবেন না। একথা মোটেও সঠিক নয়। বরং আকিকার মাংস মা-বাবা, আত্মীয়-স্বজন, ধনী-গরিব নির্বিশেষে সবাই খেতে পারবেন।আম্মাজান আয়েশা (রা.) বলেন, (আকিকার মাংস) নিজে খাবে, অন্যদের খাওয়াবে এবং সদকা করবে। তথ্যসূত্র: (বাদায়েউস সানায়ে ৪/২১০, ফাতাওয়া কাজিখান ৩/৩৫০-৩৫১ ও মুসতাদরাকে হাকেম ৫/৩৩৮)

কোনো কোনো অঞ্চলে একটি কুপ্রথা রয়েছে যে যখন নবজাতকের মাথায় ক্ষুর বসানো হবে, ঠিক সেই মুহূর্তে পশু জবাই করতে হবে, এ ধারণা সঠিক নয়। মাথা মুণ্ডানোর আগে-পরে যেকোনো সময় আকিকার পশু জবাই করা যাবে।

আতা (রহ.)-এর এক বর্ণনা মতে, আকিকার পশু জবাই করার আগে মাথা মুণ্ডিয়ে নেওয়া উত্তম। (আল মুকাদ্দামাতুল মুমাহ্হাদাত: ১/৪৪৯)

তবে অনেকে আবার মৃত সন্তানেরও আকিকা দেন, কিন্তু যেহেতু আকিকা করা হয় বালামুসিবত দূর করার জন্য, তাই মৃত বাচ্চার পক্ষ থেকে আকিকা করা সুন্নত নয়। (আহসানুল ফাতাওয়া: ৭/৫৩৬)

সংবাদের আলো বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়