সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

ঈদের ৬ দিন পুর্বে ৬ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবীতে অপহৃত, তাড়াশে মাদ্রাসা ছাত্র মারুফের লাশ উদ্ধার

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: ঈদের ছয় দিন পুর্বে অপহৃত সিরাজগঞ্জের তাড়াশের মাদ্রাসা ছাত্র মো.মারুফ হাসান (১২)’র লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) সকালে উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের ঝুড়ঝুড়ি বাজার এলাকার তালুকদার মার্কেটের একটি সেপটি ট্যাংক থেকে অপহৃত মারুফ হাসানের মরদেহ উদ্ধার করেন আইন শৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীর সদস্যরা।
বিষয়টি তাড়াশ থানার ওসি মো. নজরুল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, মরদেহ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর হয়েছে।মারুফ হাসান মাধাইনগর ইউনিয়নের ঝুড়ঝুড়ি গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে ও পাশ্ববর্তী সলঙ্গা থানার একটি মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।
জানা গেছে, ঈদের ছুটিতে মাদ্রাসা থেকে বাড়িতে আসার পর গত ৫ এপ্রিল একটি সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্র স্থানীয় বাজার থেকে মাদ্রাসা ছাত্র মারুফ হাসানকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ওই দিনেই মারুফ হাসানের বাবা মো. মোশারফ হোসেন ছেলেকে খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে তাড়াশ থানায় একটি নিখোঁজ সংক্রান্ত সাধারণ ডায়েরি করেন। এরপর থেকেই পুলিশ, র‌্যাব-১২ সহ বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলা  রক্ষাকারী বাহিনী  প্রযুক্তির সহায়তায় মারুফকে উদ্ধারের জন্য তৎপরতা চালাতে থাকেন।

এরই ধারাবাহিকতায় অপহরণের ঘটনার দিন ৫ এপ্রিল র‌্যাব-১২ এর একটি দল অপহরণের সাথে জড়িত সন্দেহে পাঁচ জনকে  জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেন। তারা হলেন, আবুল হাশেম আলী, রফিকুল ইসলাম, মো. আলামিন, মো. ওমর ফারুক ও মো. কায়সার হোসেন। আর আটকের পর র‌্যাবের কাছে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে আটককৃতরা জানায়, মাদ্রাসা ছাত্রের বাবা ৬ লাখ টাকা মুক্তিপণ না দেয়ায় তারা মাদ্রাসা ছাত্র মারুফ হাসানকে হত্যা করেছে।

এ প্রসঙ্গে র‌্যাব-১২’র অধিনায়ক মো. মারুফ হোসেন গণমাধ্যম কর্মীদের এক প্রশ্নের জবাবে জানান, অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে আর কে কে জড়িত রয়েছে সে বিষয়টি গভীর ভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তদন্তের স্বার্থেই বিস্তারিত কিছু জানানো সম্ভব নয়। অপরদিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে র‌্যাব, পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইডি) ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা উপস্থিত আছেন।

সংবাদের আলো বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----